বুধবার , ১৬ নভেম্বর ২০২২ | ১৪ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  1. অন্যান্য
  2. অপরাধ
  3. অর্থনীতি
  4. আইন-আদালত
  5. আন্তর্জাতিক
  6. আরো
  7. এক্সক্লুসিভ নিউজ
  8. খুলনা বিভাগ
  9. খেলাধুলা
  10. চট্টগ্রাম বিভাগ
  11. চাকরি
  12. জাতীয়
  13. ঢাকা বিভাগ
  14. তথ্য-প্রযুক্তি
  15. ধর্ম

চরফ্যাশনে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে চরের জমি জবরদখলের অভিযোগ

প্রতিবেদক
ভোলা প্রতিনিধিঃ
নভেম্বর ১৬, ২০২২ ৮:২৪ পূর্বাহ্ণ

ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার নুরাবাদ ইউনিয়নের মাঝের চরে ২০জন ভূমিহীনের বন্দোবস্তকৃত ৩০ একর জমি জবরদখলের অভিযোগ উঠেছে ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ আনোয়ার হোসেন ও তার লোকজনের বিরুদ্ধে।
এ ঘটনায় বিভিন্ন মহলের দ্বারে দ্বারে ঘুরেও কোনও প্রতিকার পাচ্ছে না বলে অভিযোগ ভুক্তভোগীদের।
তবে ইউপি চেয়ারম্যান এ অভিযোগ অস্বীকার করেন।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, চরফ্যাশনের দুলারহাট থানাধীন নুরাবাদ ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড মাঝের চরে ভেকু (মাটি কাটার মেশিন) দিয়ে মাটি কেটে নদী সংলগ্ন পাড় বাঁধ দিচ্ছেন ইউপি চেয়ারম্যানের লোকজন। একইসাথে জমির ভিতর দিয়ে বয়ে যাওয়া একটি খালও বাঁধ দিয়ে বন্ধ করে ফেলা হয়েছে।
মাঝের চরের ভূমি বন্দোবস্ত পাওয়া জসিম খালাসি বলেন, ২০০৪/০৫ সালে এ চরে দেড় একর জমির বন্দোবস্ত পান তিনি। কয়েকবছর ওই জমি চাষও করেছেন তিনি। তবে হঠাৎই ওই জমিতে ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেনের কুনজর পরায় তার লোকজন দিয়ে জমি জবরদখল করে রেখেছেন। বর্তমানে ওই জমি ভেকু লাগিয়ে মাটি কেটে জমি থেকে পানি নামার খাল বন্ধ করে দিয়েছেন। এনিয়ে দুলারহাট থানায় লিখিত অভিযোগ করলে ঘটনাস্থলে এসে মাটি কাটার কাজ বন্ধ করে দেয় পুলিশ। তবে চেয়ারম্যান তার ক্ষমতা দেখিয়ে থানা পুলিশের নিষেধ অমান্য করে এখনও কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন।
মোসলেউদ্দিন নামের আরেক ভূমি মালিক জানান, তিনিসহ তার স্বজনদের ১৫ একর জমিও জবরদখল করে রেখেছেন চেয়ারম্যান ও তার লোকজন। জমিতে গেলে হুমকি ধমকির শিকার হচ্ছেন তারা।
ইউসুফ মাতাব্বর, শাহ আলম মাঝিসহ আরও কয়েকজন ভূমি মালিক জানান, আগে তারা এ জমি চাষাবাদ করলেও বর্তমানে চেয়ারম্যান ও তার লোকজনের হামলার ভয়ে জমিতে যেতে পারছেন তারা।
এদিকে গত ১৪ নভেম্বর (সোমবার) ওই জমিতে কাজ বন্ধ রাখার জন্য চরফ্যাশন সহকারী জজ আদালতে মোঃ কাশেম নামে আরেক ভূমি মালিকের আবেদনের প্রেক্ষিতে ওই জমিতে স্থিতিবস্তার আদেশ দেন আদালত। তবে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ওই জমিতে এখনও কাজ চলমান রেখেছেন চেয়ারম্যান ও তার লোকজন।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে নুরাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আনোয়ার হোসেন বলেন, আমার বিরুদ্ধে তোলা অভিযোগ সত্য নয়। ওই চরে আমার কোনও জমি নাই, এমনকি ওই জমিও আমি চিনিনা।
দুলারহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আনোয়ার হোসেন বলেন, লিখিত অভিযোগ পেয়ে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার স্বার্থে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে কাজ বন্ধ রাখা হয়েছিল।

সর্বশেষ - অপরাধ

আপনার জন্য নির্বাচিত