রবিবার , ৭ মে ২০২৩ | ১৩ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
  1. অন্যান্য
  2. অপরাধ
  3. অর্থনীতি
  4. আইন-আদালত
  5. আন্তর্জাতিক
  6. আরো
  7. এক্সক্লুসিভ নিউজ
  8. খুলনা বিভাগ
  9. খেলাধুলা
  10. চট্টগ্রাম বিভাগ
  11. চাকরি
  12. জাতীয়
  13. ঢাকা বিভাগ
  14. তথ্য-প্রযুক্তি
  15. ধর্ম

গোপালপুরে বৈরান নদী ও ঝিনাই নদীতে কচুরিপানা ফুলে চোখ জোড়ানো অপরূপ দৃশ্য

প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক ॥
মে ৭, ২০২৩ ৯:৫৭ অপরাহ্ণ

মো নুর আলম গোপালপুর(টাঙ্গাইল)প্রতিনিধি
টাঙ্গাইলের গোপালপুরে দক্ষিণ পাথালিয়া ঝিনাই ও গোপালপুরের বৈরান নদী সহ বিভিন্ন বিল-ঝিল ও নদী-নালায় ফুটেছে কচুরিপানা ফুল। ফুলের নির্মল ও স্নিগ্ধকর সৌন্দর্য প্রকৃতিতে যোগ করেছে নান্দনিকতা।

তাই প্রকৃতি মেতেছে এখন নতুন রূপে। চোখ জুড়ানো অপরূপ দৃশ্যে মুগ্ধ হচ্ছেন প্রাকৃতিক সৌন্দর্য পিপাসু মানুষ।

প্রাকৃতিকভাবে জন্ম নেওয়া কচুরিপানা ফুলের অপরূপ সৌন্দর্যে হারিয়ে যায় মন। যেন প্রকৃতি সেজেছে এক অপরূপ সৌন্দর্যে।

পানির উপর বিছানো সারি সারি সবুজ পাতা আর ফুলের নয়নাভিরাম দৃশ্যে চোখ জুড়িয়ে যায়। দূর থেকে মনে হয় কেউ যেন সবুজ চাঁদরে ফুলের বিছানা পেতে রেখেছে।

সৌন্দর্যের পাপড়ি মেলে ধরা কচুরি ফুলের এ আহ্বানে সাড়া দিয়ে অনেকেই তুলছেন ছবি। ছবির ক্যানভাসে একই ফ্রেমে আবদ্ধ হচ্ছেন তরুণ-তরুণীরা। খাল বিল ও জলাশয়ে ফুল ফুটে সৌন্দর্য বাড়িয়ে দিয়েছে। ছোট ছোট ছেলে-মেয়েরা খাল-বিল কিংবা নদী-নালা থেকে শিশির ভেজা কচুরিপানার ফুল তুলে খেলা করছে। গ্রামের মেয়েরা কেউবা খোঁপায় বাঁধছে এ ফুল।

চোখ জুড়ানো সবুজ পাতার মাঝে হালকা গোলাপী রঙয়ের কচুরিপানা ফুলের উঁকি হৃদয় জুড়িয়ে দেয়। ফোটা ফুলের সঙ্গে কুঁড়িগুলো মাথা তুলেছে নতুন করে ফোটার আশায়। সবুজ পাতা আর হালকা গোলাপী ফুলের মিলন মেলায় মনের আনন্দে নির্ভয়ে বিচরণ করছে পানকৌড়ি আর ডাহুক। ফুটন্ত ফুলের মাথায় খেলা করছে প্রজাপতি আর ভ্রমরের দল।

দক্ষিণ পাথালিয়া গ্রামের এস কে শামীম হোসেন বলেন অনেক প্রকৃতিকে প্রেমী তাদের মোবাইলে ও ক্যামেরায় ছবি ধারণ করে থাকে। এবং অনেক দর্শনার্থী এসে প্রকৃতির ছবি তুলছে। যাতে তাকিয়ে থাকলে চোখ জুড়িয়ে যায়।

জানা যায়, কচুরিপানা এক প্রকার ভাসমান জলজ উদ্ভিদ। বাংলাদেশের সকলের কাছে সুপরিচিত। বর্ষাকালে অত‍্যধিক পরিমাণে জন্মায় ও দ্রুত বংশবৃদ্ধি করে নদী-নালা, খাল-বিল, হাওর-বাওর, পুকুর-জলাশয় ভরে তুলে। এটি অবাধ ভাসমান গুল্ম ও নিচে থেকে একথোকা লম্বা গুচ্ছমূল, ওপরে খর্বিত কাণ্ডে একথোকা পাতা।

পাতার বোঁটা খাটো পেটমোটা ও স্পঞ্জি। পাতাবেষ্ঠিত মঞ্জুরি ১৫-২০ সে.মি লম্বা ও দণ্ডে থাকে ১০-১২ সে.মি লম্বা দৃষ্টিনন্দন ফুল। বাংলাদেশে কচুরিপানা একটি আগাছা। জন্মায় বদ্ধজলাশয়ে, খাল-বিল, ডোবা -নালাসহ সর্বত্র। বর্ষাকালে এ পানা দ্রুতই বংশ বৃদ্ধি করে।

সর্বশেষ - অপরাধ

আপনার জন্য নির্বাচিত

কলাপাড়ায় বিশ্ব মাসিক স্বাস্থ্যবিধি দিবস উদযাপন

বিজয়ী হয়েছেন নৌকার প্রার্থী

সারাদিন ব্যাপী লালপুরের দুড়দুড়িয়া ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল কালাম আজাদের নির্বাচনী প্রচারনা

মোংলায় স্বাস্থ্য সেবা ক্যাম্প ও মা সমাবেশে উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার

শেখ হাসিনার স্মার্ট বাংলাদেশে ধর্মের নামে আগুন সন্ত্রাসের রাজনীতি আর চলবে না – এমপি শাওন

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ভোলায় ভাষা শহিদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন

বরগুনা ১ আসনে নৌকো প্রার্থীর তিন প্রচার ক্যাম্পে অগ্নিসংযোগ

এমপি শাওনের সাথে বীর মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড নের্তৃবৃন্দের শুভেচ্ছা বিনিময়

স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে আগামী প্রজন্ম সবচেয়ে বড় শক্তি- এমপি শাওন

দশমিনায় পাগলী মা হয়েছে বাবা হয়নি কেউ