শনিবার , ৯ মার্চ ২০২৪ | ১লা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অন্যান্য
  2. অপরাধ
  3. অর্থনীতি
  4. আইন-আদালত
  5. আন্তর্জাতিক
  6. আরো
  7. এক্সক্লুসিভ নিউজ
  8. খুলনা বিভাগ
  9. খেলাধুলা
  10. চট্টগ্রাম বিভাগ
  11. চাকরি
  12. জাতীয়
  13. ঢাকা বিভাগ
  14. তথ্য-প্রযুক্তি
  15. ধর্ম

লালমোহনে লঞ্চের তালাবদ্ধ কেবিন থেকে যাত্রীর মালামাল চুরি!

প্রতিবেদক
স্টাফ রিপোর্টার।।
মার্চ ৯, ২০২৪ ১০:০১ অপরাহ্ণ

লালমোহন ভোলা প্রতিনিধি :
লঞ্চের তালাবদ্ধ কেবিন থেকে যাত্রীর মালামাল চুরির ঘটনা ঘটেছে।
গতকাল শুক্রবার বিকেলে ঢাকা টু নাজিরপুর, ভায়া লালমোহনগামী এমভি প্রিন্স সাকিন লঞ্চে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় হতবাক হয়ে গেছেন ভুক্তভোগী যাত্রী।
ওই যাত্রী নাম মজিবর রহমান, তিনি লালমোহন উপজেলার কালমা ইউনিয়নের পাঁচ নাম্বার ওয়ার্ড চর ছকিনা গ্রামের বাসিন্দা।
স্ত্রীকে শুক্রবার বিকেলে এমভি প্রিন্স সাকিন লঞ্চযোগে ঢাকা থেকে লালমোহনের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেই। এ সময় নির্ধারিত যাত্রী কেবিন না পেয়ে লঞ্চের তিনতলায় স্টাফ মিরাজের কেবিন ভাড়া নেই। লঞ্চ ছেড়ে দেয়ার পরে স্ত্রীকে লঞ্চের কেবিনে রেখে পানির জন্য নিচে যাই।
তিনি আরো বলেন, লঞ্চের কেবিনে তালা মেরে কাছেই একটি বসে ছিলো আমার স্ত্রী। কিছুক্ষণ পর পুনরায় কেবিনে ঢুকতে গিয়ে লাগানো তালাটিকে উল্টো করে লাগানো এবং কেবিনের জানালা সামান্য খোলা দেখতে পায় আমার স্ত্রী। পরে কেবিনে ঢুকে দেখেন, ভেতরে বড় দুইটি ব্যাগের মাঝখানে রাখা ব্যানিটি ব্যাগটি নেই।
মজিবর রহমান অভিযোগ করে বলেন, আমি এসে কেবিনের লোকদের ডেকে বিষয়টি জানাই। ব্যাগগুলো জানালা থেকে এতটা দূরে এবং জানালা এতো ছোট যে, কেউ ভিতরে না ঢুকে ব্যাগ চুরি করা অসম্ভব। তাছাড়া, লঞ্চের স্টাফদের কাছে কেবিনের তালার একাধিক চাবি রয়েছে।
তাই লঞ্চ স্টাফদের যোগসাজশে এই চুরির ঘটনা ঘটানো হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন মজিবর।
মজিবর রহমান বলেন, ব্যানিটি ব্যাগে স্বর্ণের কানের দুল, গলার চেইন, ঝুমকা, কানের রিং, নাকফুলসহ প্রায় দেড় ভরি স্বর্ণ, রুপার একজোড়া নুপুর ও নগদ সাড়ে ষোলো হাজার টাকা ছিলো। বিষয়টি রাতেই লালমোহন থানায় জানিয়েছেন বলেও জানান ভুক্তভোগী মজিবর রহমান।
এদিকে স্টাফদের যোগসাজশে চুরির অভিযোগ অস্বীকার করে সাকিন লঞ্চের স্টাফ মিরাজ বলেন, ওই কেবিনের জানাল যে পরিমাণ খোলা ছিলো, সেটুকু দিয়ে যে কেউ চুরি করতে পারে।
এ বিষয়ে জানতে সাকিন লঞ্চের ইন্সপেক্টর সফিক এর মুঠোফোনে একাধিকবার কল দিলেও রিসিভ করেননি তিনি।
এমভি প্রিন্স সাকিন লঞ্চের মালিক ফিরোজ মিয়া বলেন, সদরঘাটে এমন ঘটনা এখন অহরহ চলছে। ঘাটে থাকাকালীন যাত্রীদের অসচেতনতায় লঞ্চে এমন ঘটনা ঘটলে তার দায়ভার আমাদের নয়। তবুও লঞ্চের স্টাফরা আসলে তাদের কাছ থেকে জেনে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের চেষ্টা করবো।
লালমোহন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এসএম মাহবুব উল আলম বলেন, বিষয়টি আমাকে জানানো হয়েছে। তবে এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ দেয়নি।

সর্বশেষ - এক্সক্লুসিভ নিউজ

আপনার জন্য নির্বাচিত

লালমোহনে সাংবাদিক কন্যার বৃত্তি প্রাপ্তিতে মিষ্টিমুখ

ভোলা-৩ আসনে টিভি না দেওয়ায় জাতীয় পার্টির মনোনয়ন বঞ্চিত করার অভিযোগ

পুঠিয়ায় মাই টিভি’র সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে চাঁদা নেবার সময় ভুয়া সংবাদিক আটক

শেখ হাসিনার উন্নয়ন তৃর্নমূলে পৌছে দিতে লালমোহনের বিভিন্ন রাস্তা পরিদর্শন করলেন এমপি শাওন

লালমোহনে ২০ লক্ষ টাকার অবৈধ জাল আগুনে পুড়িয়ে ধ্বংস করেছে প্রশাসন

স্বামীকে বেঁধে গৃহবধূকে গণধর্ষণ, প্রধান আসামির আত্মসমর্পণ

বঙ্গবন্ধুর মতো বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা শোষিত মানুষের পক্ষের শক্তি – এমপি শাওন

গ্রামীণ ব্যাংক’র এ বছর ২০ কোটি গাছের চারা রোপনের লক্ষ্য মাত্রা নির্ধারণ

ঠাকুরগাঁওয়ে জেলা পুলিশের অভিযানে গত ২৪ ঘন্টায় ২৯ জন আসামি গ্রেফতার

বিএনপি-জামায়াতের বারবার ডাকা অবৈধ হরতাল-অবরোধ রুখে দিতে লালপুরে বিক্ষোভ মিছিলও শান্তি সমাবেশ করেছে লেঃ কর্নেল রমজান সমর্থকরা